1. jfjoy24@gmail.com : admin :
  2. wordpressdefaults@gmail.com : defaults :
গঙ্গাচড়ায় পুকুরে মিললো ২ সন্তানের জননীর লাশ | তিস্তা সংবাদ
মঙ্গলবার, ২৩ এপ্রিল ২০২৪, ০৯:০৫ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
রংপুরে নাশকতার মামলায় কারাগারে দুই যুবদল নেতা বাংলাদেশ-কাতার ১০ চুক্তি ও সমঝোতা স্মারক সই নীলফামারীতে মাটি খুঁড়তেই মিললো রাইফেল, মাইন ও মর্টারশেল পীরগাছা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে মিলনকে সমর্থন জানিয়ে লিটনের প্রত্যাহার রংপুরে ঘাঘট নদ থেকে অবৈধভাবে বালু উত্তোলন বন্ধে প্রশাসনের অভিযান ডিবিতে ডাকা হয়েছে কারিগরি বোর্ডের সাবেক চেয়ারম্যানকে তাপমাত্রা কমাতে পরিকল্পনার কথা জানালেন চিফ হিট অফিসার কারিগরি শিক্ষা বোর্ডের চেয়্যারম্যানের স্ত্রী গ্রেপ্তার গঙ্গাচড়ায় আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচন অবাধ ও শান্তিপূর্ণ করতে একাত্বতা ঘোষনা ‘এত সম্মান দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ’, ভোটে হেরে নিপুণ

গঙ্গাচড়ায় পুকুরে মিললো ২ সন্তানের জননীর লাশ

প্রতিনিধি
  • আপডেট রবিবার, ৫ সেপ্টেম্বর, ২০২১
  • ১৭১

 

সুজন আহম্মেদ, রংপুর প্রতিনিধি

রংপুরের গঙ্গাচড়ার একটি পুকুর থেকে আজ রোববার দুপুরে উম্মে হানি নামের (৪২) দুই সন্তানের এক জননীর লাশ উদ্ধার করে ময়না তদন্তের জন্য মর্গে পাঠিয়েছে পুলিশ ।

নিহতের কন্যা জানিয়েছেন পারিবারিক বিরোধের জেরে তার বাবা, মাকে হত্যা করে লাশ পুকুরে ফেলে দিয়েছে । আর পুলিশ বলছে, এ ঘটনায় একটি ইউডি মামলা নেয়া হয়েছে ।

প্রাথমিক তদন্তর উদ্ধৃতি দিয়ে রংপুরের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (এ সার্কেল) আবু তৈয়ব মোঃ আরিফ হোসেন , শনিবার রাতে খাবারের পর বড়বিল ইউনিয়নের মাল্লিপাড়া গ্রামের জিয়ারুল ইসলাম ও তার স্ত্রী উম্মেহানী (৩৫) ঘুমিয়ে পড়েন । পরে রাত সাড়ে তিনটার দিকে উম্মে হানীর লাশ স্বামী জিয়ারুল বাড়ির পাশের পুকুর থেকে তুলে বাড়ির উঠানে নিয়ে এসে রাখেন ।

পুলিশ কর্মকর্তা আরও বলছেন , রোববার সকালে খবর পেয়ে আমরা তার বাড়ির উঠোন থেকে লাশ উদ্ধার করি । সেখানে রিপোর্ট লেখার পর ময়না তদন্তের জন্য লাশ রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের মর্গে পাঠাই । এ বিষয়ে একটি ইউডি মামলা করা হয়েছে ।

পোস্ট মোর্টেম রিপোর্টের পরই স্পস্ট হবে তাকে হত্যা করা হয়েছে । নাকি কিভাবে তিনি মারা গেলেন ।

ঘটনাস্থল থেকে থানার এসআই আব্দুর রউফ জানান, তার স্বামী ঘটনার পর বাড়ি থেকে পালিয়ে গেছে । লাশ থানায় এনে মেডিকেলে পাঠানো হয়েছে ।

নিহতের কন্যা জবা বেগম জানান, আমার বাবা তিনমাস আগে গঙ্গাচড়া সদর ইউনিয়নে ভুটকা গ্রামে জান্নাতি নামের একজনকে বিয়ে করেন । এ নিয়ে বাপের সাথে মায়ের ঝগড়াঝাটি লেগেই ছিল । বাবাই আমার মাকে হত্যা করে পানিতে ফেলে দিয়েছে ।

তবে নিহতের পুত্র জীবন জানান, আমার মায়ের মৃগি রোগ ছিল ।

ঘটনাটি হত্যা নাকি অন্যকিছু তা খতিয়ে দেখতে পুলিশের কাছে দাবি করেছেন নিহতের পরিবার এবং এলাকাবাসী ।

আপনার স্যোসাল মাধ্যমে শেয়ার দিন

এই বিভাগের আরো খবর
© ২০২৪ সর্বস্বত্ব সংরক্ষিত | তিস্তা সংবাদ.কম
Theme Customization By NewsSun