রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:১৭ পূর্বাহ্ন

পীরগঞ্জে পৌর মেয়র পদে বাতিল প্রার্থীতা হাইকোর্টে বৈধ !

পীরগঞ্জে পৌর মেয়র পদে বাতিল প্রার্থীতা হাইকোর্টে বৈধ !

 

পীরগঞ্জ(রংপুর) প্রতিনিধি

পীরগঞ্জ পৌরসভা নির্বাচনে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সায়দুর রহমানের মনোনয়নপত্র হাইকোর্ট বৈধ ঘোষণা করেছে। গত বুধবার হাইকোর্ট ওই মনোনয়ন পত্র বৈধ ঘোষনা করে বলে জানা গেছে।

এর আগে গত ৪ নভেম্বর (বৃহস্পতিবার) মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে পৌর রিটার্নিং অফিসার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন ওই মেয়র প্রার্থীসহ আরও ৪ জন কাউন্সিলর প্রার্থীর মনোনয়নপত্র বাতিল ঘোষণা করেন।

উপজেলা নির্বাচন কর্মকর্তার দফতর জানায়,আগামী ২৮ নভেম্বর পীরগঞ্জ পৌরসভার অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে ৩ নভেম্বর মেয়র পদে ৪ জন, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর পদে ১৩ জন ও সাধারণ কাউন্সিলর পদে ৩২ জন প্রার্থী মনোনয়নপত্র দাখিল করেন। মেয়র প্রার্থীরা হলেন, আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন-সম্পাদক পৌর মেয়র এএসএম তাজিমুল ইসলাম শামীম, জাতীয় পার্টি মনোনীত জাইদুল ইসলাম, ইসলামী শাসনতন্ত্র আন্দোলনের সুলতান মিয়া ও স্বতন্ত্র প্রার্থী সাবেক ইউপি চেয়ারম্যান সায়দুর রহমান।

গত ৪ নভেম্বর মনোনয়নপত্র বাছাইয়ে স্বতন্ত্র মেয়র প্রার্থী সায়দুর রহমানের সর্বশেষ শিক্ষাগত যোগ্যতার সনদপত্র এবং আয়কর বিবরনীর সাথে সম্পদের মিল না থাকায় তার প্রার্থীতা বাতিল করা হয়। পৌর নির্বাচনের রিটার্নিং অফিসার জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা ফরহাদ হোসেন বলেন, মেয়র প্রার্থী সায়দুর রহমান মনোনয়নপত্রে তার শেষ শিক্ষাগত যোগ্যতা ও আয়ের সাথে সম্পদের সামঞ্জস্য না হওয়ায় তার প্রার্থীতা বাতিল করা হয়েছে। নির্বাচনী বিধি অনুযায়ী তিনি ৭২ ঘন্টার মধ্যে জেলা প্রশাসকের বরাবরে উল্লেখিত তথ্যাবলী সন্নিবেশিত করে প্রার্থীতা ফিরে পেতে আবেদন করতে পারবেন। জেলা প্রশাসক এ ব্যাপারে পরবর্তী ৭২ ঘন্টার মধ্যে তার সিদ্ধান্ত জানাবেন।

গত সোমবার জেলা প্রশাসকের কাছে প্রার্থীতা ফিরে পেতে আবেদন করলে সেখানেও সায়দুর রহমানের মেয়র প্রার্থীতা বাতিল করা হয়। পরে তিনি হাইকোর্ট রিট করলে তার প্রার্থীতা বৈধ ঘোষনা করা হয়।

এ ব্যাপারে মেয়র প্রার্থী সায়দুর রহমান বলেন, আগামীকাল রোববার হাইকোর্ট থেকে রায়ের জাবেদা কপি তুলে রিটার্নিং অফিসারের কাছে জমা দিব। তারপর নির্বাচনী প্রচারণা শুরু করবো। এতো দেরিতে প্রচারণা করলে নির্বাচনে নেতিবাচক প্রভাব পড়বে কিনা তা জানতে চাইলে তিনি বলেন, গতবার পৌর নির্বাচনে আমার প্রতীক ছিল নারিকেল গাছ। এবারও তাই চেয়েছি। সুতরাং আমার নারিকেল গাছ মার্কা পৌর ভোটাররা জানেন। এতে কোন সমস্যা হবে না।

পৌর নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ইমদাদুল হক বলেন) প্রতীক বরাদ্দ দেয়া হয়েছে। বাতিল হওয়া প্রার্থীরা (মেয়র, কাউন্সিলররা) সময় মতো আদালতের নির্দেশ আনতে পারলে যথাযথ কর্তৃপক্ষ সে ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নিবেন।

আপনার স্যোসাল মাধ্যমে শেয়ার দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2023 teestasangbad.com
Developed BY Rafi It Solution