বৃহস্পতিবার, ০৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৬:৩০ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
গঙ্গাচড়ায় দুস্থ ও অসহায় শীতার্থদের মাঝে কম্বল বিতরণ করেন.. এমপির কন্যা জুই জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় পদার্থবিজ্ঞান অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি মমিন সাধারণ সম্পাদক শোভন রংপুরে শিশু নির্যাতনের প্রতিবাদ করতে গিয়ে  মিথ্যা মামলায় কারাগারে ইউপি সদস্য জবি ছাত্রলীগের পদার্থ বিজ্ঞান বিভাগের সভাপতি রাফি সেক্রেটারি সাদেক পীরগঞ্জে বিএনপির উদ্যোগে গরিব অসহায় মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ গঙ্গাচড়ায় শীতকালীন ক্রীড়া প্রতিযোগিতায় বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ গঙ্গাচড়ায় বীর মুক্তিযোদ্ধাবৃন্দের মাঝে কম্বল বিতরণ গঙ্গাচড়ায় এনজিও ফেডারেশনের উদ্যোগে শীতার্থদের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ গঙ্গাচড়ায় নবাগত ইউএনও’র সঙ্গে সাংবাদিকদের মতবিনিময় হেলপিং হ্যান্ড ফাউন্ডেশনের উদ্বোধন উপলক্ষে শীত বস্ত্র বিতরণ
রংপুর পীরগাছায় সেচ পাম্পের কমিটি নিয়ে বিরোধের জেরে পানি থেকে বঞ্চিত কৃষক

রংপুর পীরগাছায় সেচ পাম্পের কমিটি নিয়ে বিরোধের জেরে পানি থেকে বঞ্চিত কৃষক

 

রংপুর প্রতিনিধি
রংপুর পীরগাছা উপজেলার ১ নং কল্যানী ইউনিয়ন’র ১ নং ওয়ার্ডের খামার উপাশু মৌজায় গত ২০১৪ সালে বরেন্দ্র প্রকল্পের মাধ্যমে গভীর নলকুপটি স্হাপন করে এবং আলহাজ খাজা আহম্মেদ কে ম্যানেজারের দ্বায়িত্ব দিয়ে সকলের জমিতে পানি সেচ পরিচালনা করিয়া আসিতেছিলো।

২০১৫ সালে এসে আলহাজ খাজা আহম্মেদ ১লক্ষ ২৫ হাজার টাকার বিনিময়ে খামার উপাশু গ্রামের স্হায়ী বাসিন্দা বিষু চন্দ্র বর্মনের নিকট হস্তান্তর করে। বিষু চন্দ্র বর্মন ম্যানেজার হিসাবে দ্বায়িত্ব পাওয়ার পর থেকে সফল ভবে উক্ত গভীর নলকুপটি পরিচালনা করিয়া আসিতেছিলো।কিন্তু খামার উপাশু গ্রামের কিছু অসাধু ব্যাক্তি তার এ সফলতাকে মেনে না নেওয়ায় ঐ গ্রামের কিছু লোক বিষু চন্দ্র বর্মন’র বিরুদ্ধে চক্রান্ত শুরু করে।এবং বিষু চন্দ্র বর্মনকে এলোপাতাড়ি ভাবে জখম করিলে গত ২৩/১২/১৭ ইং তারিখে পীরগাছ থানায় মামলা হয় যাহার মামলা নং ১১/১৭ মামলা হওয়ায় খামার উপাসু গ্রামের লোক জন পীরগাছা উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যানের শরণাপন্ন হলে বিষয়টি নিয়ে গ্রামের সকলের সঙ্গে আলোচনা সাপেক্ষে ও দন্দ নিরসনের লক্ষ্যে বিষু চন্দ্র বর্মন (৪৮) কে পুনরায় ম্যানেজার পুনবহাল করে ও শ্রী সুবল কুমার লালটু (৩৫) কে লাইনম্যান করে দিয়ে গভীর নলকুপটি পরিচালনা করার দ্বায়িত্ব দেন।

কিন্তু গত সালে এসে আবারো পুর্ব শত্রুতার জ্বের ধরে আবারো বিষু ও লালটুর মাঝে শুরু হয় কথা কাটাকাটি। এবং লাকটু গ্রামের সকল লোককে ফুসলিয়ে ক্ষেপিয়ে তোলে,এই সুযোগকে কাজে লাগিয়ে কৌশলে বিষু চন্দ্র কে বাদ দিয়ে লালটু সেচ কার্য পরিচালনা শুরু করে।

উক্ত গ্রামে গিয়ে দেখাযায় বিষু চন্দ্র বর্মন অনুসারী ১০-১৫ জন কৃষককে বোরো মৌসুমে সেচ থেকে বঞ্চিত করা হয় এব্যাপারে এলাকায় উত্তেজনার সৃষ্টি হয়েছে।

বিষটি প্রশাসনের নজরে এনে দ্রুত হস্তক্ষেপ কামনা করছে এলাবাসী।

আপনার স্যোসাল মাধ্যমে শেয়ার দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

© All rights reserved © 2022 teestasangbad.com
Developed BY Rafi It Solution