বুধবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২২, ০৪:১৬ অপরাহ্ন

লকডাউনের চতুর্থ দিনেও কঠোর অবস্থানে পাটগ্রাম উপজেলা প্রশাসন

লকডাউনের চতুর্থ দিনেও কঠোর অবস্থানে পাটগ্রাম উপজেলা প্রশাসন

মিনহাজ পারভেজ, পাটগ্রাম লালমনিরহাট

পাটগ্রামে চতুর্থ দিনের মতো কঠোর লকডাউন কর্মসূচি চলছে। লকডাউনের চতুর্থ দিনেও কঠোর অবস্থানে ছিল পাটগ্রাম উপজেলা প্রশাসন। এ উপলক্ষে পাটগ্রাম চৌরঙ্গী মোড়, বুড়িমারীর আন্তঃজেলা মোড়সহ শহরের বিভিন্ন পয়েন্টে লকডাউন পরিস্থিতি পর্যবেক্ষণ করেন পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাইফুর রহমান, সহকারী কমিশনার ভূমি ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রুবেল রানা, পাটগ্রাম থানার অফিসার ইনচার্জ মোঃ উমর ফারুক, বিজিবি,আনসারসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত বাহিনীর কর্মকর্তাবৃন্দ।

এর আগে গত ৩ জুলাই লালমনিরহাট জেলা প্রশাসকের সভাপতিত্বে ও আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তা, সাংবাদিক, রোভার স্কাউটস ব্যক্তিত্বের সমন্বয়ে করোনাভাইরাস সংক্রমণ প্রতিরোধ এবং প্রাদূর্ভাব মোকাবেলায় লকডাউন কার্যকর এবং পাটগ্রাম শহরে মাক্স বিতরণ করা হয়। এদিকে আজ ৪ জুলাই লকডাউনে অযথা ঘর থেকে বের হওয়ায় পরিবহন আইন ২০১৮ এবং পেনাল কোড ১৮৬০ অনুযায়ী পাটগ্রাম উপজেলায় ২৫ টি মামলায় মোট ৯৬০০ টাকা জরিমানা করা করেছে ভ্রম্যমান আদালত।

এবিষয়ে পাটগ্রাম উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোঃ সাইফুর রহমান বলেন, লকডাউনের চতুর্থ দিনেও কঠোর অবস্থানে ছিলো উপজেলা প্রশাসন। জরুরি প্রয়োজন ছাড়া কাউকে ঘর থেকে বের হতে দেইনি। যানচলাচল নিয়ন্ত্রণে শহরের প্রধান প্রবেশ পথ গুলোতে চেকপোস্ট বসানো হয়েছে। পুলিশের পাঁশাপাশি, বিজিবি,আনসারসহ আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় নিয়োজিত বাহিনীর সদস্যরা মাঠে রয়েছে। লকডাউন কার্যকর করতে পাটগ্রাম উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে সকল ধরনের ব্যবস্থা গ্ৰহন করা হচ্ছে।

অভিযান পরিচালনা কালে সহকারী কমিশনার (ভূমি) ও এক্সিকিউটিভ ম্যাজিস্ট্রেট মোঃ রুবেল রানা জানান, সাধারণ মানুষকে মাস্ক পরিধানসহ স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের আহবান জানানো হয় এবং স্বাস্থ্যবিধি না মানলে যথাযথ আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণের ব্যাপারে প্রচারণা চালানো হয়। করোনাভাইরাস সংক্রমণ বৃদ্ধি প্রতিরোধে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ নিশ্চিতকরণে পাটগ্রাম উপজেলা প্রশাসনের এমন উদ্যোগ অব্যাহত থাকবে।

আপনার স্যোসাল মাধ্যমে শেয়ার দিন

Leave a Reply

Your email address will not be published.

© All rights reserved © 2022 teestasangbad.com
Developed BY Rafi It Solution